জেনে নিন ক্ষত নিরাময়ে সাহায্য করে যে খাবারগুলো

ক্ষত নিরাময়ের জন্য সঠিক পুষ্টি গ্রহণ করা অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। ক্ষত নিরাময়ের গতি বৃদ্ধিতে সাহায্য করে পুষ্টিকর খাবার। কাঁটা ছেঁড়া, ক্ষত বা ঘা নিরাময়কে ত্বরান্বিত করতে পারে এমন কিছু সুপার ফুডের কথাই জেনে নিই চলুন।

১। টমেটো:-
টমেটোতে লাইকোপিন নামক অ্যান্টি অক্সিডেন্ট থাকে যা অন্য অনেক খাবারেই অনুপস্থিত। এই উপাদানটি জারণের বিরুদ্ধে কাজ করে শরীরের কোষকে ক্ষতিগ্রস্থ হওয়া থেকে রক্ষা করে এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করতেও সাহায্য করে। এভাবেই ক্ষতের সংক্রমণের ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করে টমেটোর লাইকোপিন।

২। মধু:-
মধুতে চিনির তুলনায় ভিটামিন এবং অ্যামাইনো এসিড থাকে প্রচুর পরিমাণে। ক্ষত পরিষ্কার করে মধু লাগালে প্রদাহ, ব্যথা ও ফোলা কমে। এর অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল উপাদান ক্ষতের সংক্রমণ প্রতিরোধে সাহায্য করে। প্রতিদিন ১ চামচ মধু খেলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়।

৩। সয়া পণ্য:-
সয়া পণ্যে ভিটামিন এ, সি, ডি, ই এবং কে থাকে যা পরিপাকের কাজে সাহায্য করে, ইমিউন সিস্টেমকে সহায়তা দান করে এবং ত্বকের স্বাস্থ্য ভালো রাখে। এছাড়াও এতে উচ্চ মাত্রার প্রোটিন থাকে যা নতুন টিস্যুর গঠনে সাহায্য করে।

৪। ব্রোকলি:-
ক্রুসিফেরি পরিবারের সবজিতে উচ্চমাত্রার ফাইটোনিউট্রিয়েন্ট থাকে যা ইনফ্লামেশন কমাতে ও ইমিউন ফাংশন বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। রক্তনালী থেকে শুরু করে ত্বকের উপরের স্তরের টিস্যুর বৃদ্ধি এবং মেরামতের জন্য অত্যাবশ্যকীয় ভিটামিন সি যা ব্রোকলিতে আছে। এই সুস্বাদু সুপারফুডটি আপনার সকালের নাশতায় ডিমের সাথে বা পাস্তায় অথবা সালাদে যোগ করুন।

৫। চকলেট:-
এটা শুনে খুশি হবেন যে সার্বিক সুস্বাস্থ্য বিশেষ করে ক্ষত নিরাময়ে উপকারী ভূমিকা রাখে চকলেট। কনটেম্পোরারি রিভিউজ ইন কার্ডিওভাস্কুলার মেডিসিন এর রিপোর্ট অনুযায়ী স্বাস্থ্যকর রক্তচাপের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে ডার্ক চকলেট। ক্ষততে অক্সিজেন, পুষ্টি উপাদান এবং ভিটামিন সরবরাহ করার প্রধান কাজটি করে রক্ত। এছাড়াও এতে শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট উপাদান আছে যা ইমিউন সিস্টেমকে ইনফেকশনের হাত থেকে রক্ষা করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*